জীবনের বাঁকে বাঁকে

বিবি বিশ্লেষণ

১. অসংলগ্ন গল্প

গ্রামের মানুষ বিয়ে বাড়িতে দই খুব বেশি খায়। সবকিছু দেখে জাফর সাহেব মিষ্টিওয়ালার সাথে আপোস করলেন, তুই দইয়ে চিনি দিবি না, টক দই লোকে বেশি খাবে না।

আমি সবার সামনে তোকে গালাগালি করব – কেন চিনি দিলি না? মানুষ কীভাবে খাবে?

তুই চুপচাপ শুনে যাবি, কোনো প্রতিবাদ করবি না। তার বদলে তোকে আমি টাকা বেশি দেব।

দাওয়াতের দিন ঘটনা পরিকল্পনা মতই আগাচ্ছিল, ঝামেলা পাকালেন জাফর সাহেব নিজেই। গালাগালি করতে করতে উত্তেজিত হয়ে তিনি মিষ্টিওয়ালাকে দিলেন এক থাপ্পর। মিষ্টিওয়ালা সবার সামনে বলে ফেলল, আপনিই তো বলছেন চিনি না দিতে।

জাফর সাহেব দেখলেন অবস্থা বেগতিক, তিনি মিষ্টিওয়ালাকে সবার সামনে থেকে গুম করে ফেললেন। তারপর বললেন, তোকে বলছি না টাকা বেশি দিব—চুপচাপ শুনে যাবি। এখন আমার মান সম্মান কই থাকে লোকের সামনে? মিষ্টিওয়ালা বলল, স্যার আপনার আর মান-সম্মান! আর আপনি আমাকে বলছেন গাল দিবেন, গায়ে হাত তোলার তো কথা ছিল না!

এতই যখন বুঝিস তাহলে যা, হারিয়ে যা। বলেই জাফর সাহেব তার সাগরেদদের ডাক দিলেন, দইওয়ালাকে হারিয়ে দেওয়ার জন্য।

২. হারিয়ে যাওয়া

‘তানভির হাসান জোহা তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কেউ নয়’—টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এমন এক বিবৃতির পরিপ্রেক্ষিতেই তার বক্তব্য:
‘বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনা নিয়ে তদন্তকারীরা কেউ কথা বলেননি। আমি বলেছি। আমি আমার দায়িত্ব থেকেই বলেছি। এটা প্রকাশ করা প্রয়োজন। …

আমি বিদেশি নাগরিকদের তদন্তে রাখা নিয়ে আপত্তি করেছি। কারণ, আমি মনে করি, হ্যাকাররা বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি হোল (গর্ত) তৈরি করেছেন, আর এখন বিদেশি বিশেষজ্ঞদের হাতে তদন্তের নামে তথ্য তুলে দিলে আরও বড় হোল তৈরি হবে।

বুধবার রাতে বাসায় ফেরার সময় কচুক্ষেত এলাকায় দুই-তিনটি গাড়ি তার সিএনজিকে ঘিরে ধরে। এরপরই অপহৃত হন জোহা। সঙ্গে ছিলেন বন্ধু ইয়ামির আহমেদ। তিনি ফোন করে অপহরণের ঘটনা জানান জোহার পরিবারকে।

খবর পাওয়ার পরপরই পুলিশকে জানাতে জোহার স্বজনরা কলাবাগান থানায় যান। পুলিশ জানায়, অপহরণের এলাকা কাফরুল থানা এলাকায়। সেখানে গেলে কাফরুল থানা পুলিশ তাদের ক্যান্টনমেন্ট থানায় পাঠায়। সেখান থেকে পুলিশ আবার তাদের পাঠায় ভাসানটেক থানায়। তবে ভাসানটেক থানা পুলিশও দাবি করে এই ঘটনাস্থল তাদের এলাকায় পড়ে না। হতাশ হয়ে তারা বাসায় ফিরে আসতে বাধ্য হন। [i]

উল্লেখ্য জোহা নিয়মিত শাহবাগে যেতেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রণালয়ের প্রকল্প ‘সাইবার নিরাপত্তা বিভাগে’র ডিরেক্টর (অপারেশন) ছিলেন তিনি। ব্লগ আর ফেসবুক জগতের কম মানুষকে তাদের হাতে গুম/নাকাল হতে হয়নি।

আরও দেখুন:  ওদের দেওয়া পরিচয় অনুযায়ী আমি একজন 'জারজ!' - রুম নাম্বার ৫০৬

৩. রাখাল বালক

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ সংশ্লিষ্টদের প্রশ্রয়ে প্রায় চার বছরেরও অধিক সময় অব্যাহতভাবে অনিয়ম করে যাচ্ছে ব্যাংকটির শীর্ষ পদের কর্মকর্তারা। শুধু তাই নয়, এ অনিয়ম করে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা লোপাট করা হয়েছে। এ নিয়ে ব্যাংকিং মহলে ব্যাপক আলোচনা থাকলেও বাংলাদেশ ব্যাংক কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।[ii]

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে লোকসান হয়েছে ৪ হাজার ১৫১ কোটি টাকা। আর এ সময়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিট লোকসান দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৬২২ কোটি টাকা।[iii]

গত ১৪ মাসে ১৪ বার বিদেশে গেছেন তিনি। এর মধ্যে গত বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে ১৪ মাসে ভারতে চারবার… [iv]

বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল কাজ হলো মুদ্রানীতি প্রণয়ন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণসহ আর্থিক খাতের নীতি প্রণয়ন করা। অথচ তিনি তা না করে আর্থিক খাতে গণমানুষের সম্পৃক্ততার কথা বলে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন। আগের কোনো গভর্নরকে এ রকম করতে দেখিনি – নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শীর্ষ কর্মকর্তা।

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও রবীন্দ্রনাথের ওপর প্রবন্ধ রচনায় অনন্য অবদান রাখার জন্য তাকে ‘সাহিত্য পুরস্কার ২০১৫’-তে ভূষিত করা হয়েছে তার উল্লেখযোগ্য রচনাবলী:

  • “তব ভুবনে তব ভাবনে: রবীন্দ্রনাথের অর্থনীতি ভাবনা “
  • “অসহযোগের দিন গুলিঃ মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি পর্ব”
  • “বাংলাদেশের আরেক নামঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব”
  • “ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ”
  • “ভাষার লড়াই, বাঁচার লড়াই”
  • “মুক্তিযুদ্ধের মানুষ, মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন”

৪. রাখাল সাহেবের শেষ ভাষণ:

আমি পদত্যাগপত্র লিখে বসে আছি। প্রধানমন্ত্রী আমাকে নিয়োগ দিয়েছেন। তিনি যদি বলেন তাহলে আমি যেকোন মুহূর্তে পদত্যাগ করব – আতিউর রহমান, পদত্যাগ পত্র জমা দেয়ার আগে।

আমি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি – আতিউর রহমান, পদত্যাগ পত্র জমা দেয়ার পরে। [v]

– ভারত থেকে ফিরে আগের রাতে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে কথোপকথনের প্রসঙ্গ তুলে বলেন, হয়তো আমার এক্সিটটা আরও ভালো হতে পারত। যদি একটা সংবর্ধনা দিয়ে…. – আতিউর রহমান।[vi]

হ্যাঁ। কিন্তু আমি খুব অবাক হয়েছি। আতিউর রহমান সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তিনি একটুও লজ্জিত হননি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিনি ইনিয়ে-বিনিয়ে অনেক কথা বলেছেন। দুজন ডেপুটি গভর্নরের চাকরি গেছে তাঁর কারণে। বোঝাতে চাইলেন যে তিনি একা দায়ী নন। দুজনের বাইরে আরও কয়েকজনের চাকরি খাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন – আবুল মাল আবদুল মুহিত[vii]

আরও দেখুন:  এক ডিভোর্সি বোনের খোলাচিঠি

– আল্লাহর মেহেরবানি, আমরা একটা অংশ ফেরত পেয়েছি এবং আজকে ফিলিপিন্স থেকে খবর এসেছে যে আমরা পুরোটাই পাব – আতিউর রহমান[viii]

টাকা আসলে উদ্ধার হবে কি না, আমি নিশ্চিত না – আবুল মাল আবদুল মুহিত [ix]

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার উদ্ধারের সুযোগ ‘খুব কম’ – ফিলিপাইনের তদন্তকারী সিনেট কমিটি ব্লু রিবন। [x]
প্রথম দিনই আমি এফআইইউয়ে (ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট) এফআইআর করেছি এবং তাদের পরামর্শমতো কাজ শুরু করেছি। যখন পরিস্থিতি খানিকটা আমার নিয়ন্ত্রণে এসেছে তখন আমি এনএসআইকে যুক্ত করেছি, র‌্যাবকে যুক্ত করেছি, ফায়ারআইকে তো আগেই যুক্ত করেছি। ফিলিপিন্সের গভর্নরের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেছি। যেহেতু ইন্টেলিজেন্সের বিষয়- এগুলো গোপনীয়তার সাথে করতে হয় – আতিউর রহমান[xi]

৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের অর্থ চুরি হয়। চুরি হওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনের রিজাল ব্যাংকিং করপোরেশনের জুপিটার শাখায় ছিল ৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। সেখান থেকে অর্থের বড় অংশ চলে যায় দেশটির ক্যাসিনোতে। আবার ক্যাসিনোতেও সেই অর্থ ছিল আরও ২০ দিন, ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

অর্থ চুরির পুরো ঘটনাটি বাংলাদেশে গোপন রাখা হয়। আর গোপনীয়তার মধ্যেই অর্থ সরিয়ে ফেলা সহজ হয়।[xii]

ওই সভায় আইএমএফ এর প্রধানসহ বিভিন্ন দেশের গভর্নররা এসেছিলেন। সেখানে দুটি প্যানেলে আয়োজকরা আমাকে বক্তৃতা দেওয়ার সুযোগ দিয়েছেন। সেখানে কীভাবে অর্থ উদ্ধার করা যায়, সিকিউর করা যায় এই বিষয়গুলো তাদের সঙ্গে আমি আলাপ করেছি – আতিউর রহমান[xiii]

ড: আতিউর রহমান ভারতে জলবায়ু পরিবর্তনের বিপদ নিয়ে আইএমএফের সেমিনারেই ব্যস্ত ছিলেন। তিনদিনের দিল্লি সফরে ভারত ও এশিয়ার নানা দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর বা ডেপুটি গভর্নরদের সঙ্গেই তার আলাপ হয়েছে, কিন্তু কাউকে তিনি কোনওভাবেই আঁচ করতে দেননি দেশে তিনি কত বড় বিপদ ফেলে এসেছেন।[xiv]

২৮ বিলিয়ন ডলার রিজার্ভ আমার সন্তানের মতো- তিলে তিলে এটা গড়ে তুলেছি। – আতিউর রহমান [xv]

বহুবার বলেছি যে, তুমি ব্যাংকিংয়ে মনোযোগ দাও। কিছু বললেই তিনি বলতেন, আমি এটা করেছি, ওটা করেছি। দুই দিন আগেও তিনি বলেছেন, প্রায় ২৮ বিলিয়ন ডলার রিজার্ভের কৃতিত্ব তাঁর। রিজার্ভের কৃতিত্ব মূলত প্রবাসী শ্রমিকদের। – আবুল মাল আবদুল মুহিত [xvi]

আরও দেখুন:  আড়ালে তার সূর্য হাসে

…কিয়ামাতের আলামত এই যে … নগ্ন পা ও উলঙ্গ শরীর বিশিষ্ট রাখালদের দেখা যাবে যে, তারা সুউচ্চ দালানকোঠায় বসে অহঙ্কার করছে– মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম।[xvii]

৫. অনন্য কথন:

বাংলাদেশ এখন আইসিটি খাতে এগিয়ে যাচ্ছে। এ জন্য হ্যাকারদের অন্যতম টার্গেট এখন বাংলাদেশ –
প্রধানমন্ত্রীর তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়[xviii]

আতিউর রহমানের এই পদত্যাগ একটি সাহসী পদক্ষেপ, যা নৈতিক মনোবল ও সৎ সাহসের বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে – প্রধানমন্ত্রী।[xix]

৬. উপসংহার:

বাংলাদেশ ব্যাংকের ঘটনা আসলে কী আমি তা জানি না। জানার মতো অবস্থাতেও নেই। শুধু পত্রিকাতে আসা খবরগুলো বিশ্লেষণ করেছি মাত্র। এখান থেকে কে কী সিদ্ধান্ত নেবেন সেটা আপনাদের ব্যাপার। তবেমানুষ ভাবছে টাকা তো বাংলাদেশ ব্যাংকের গেছে, আমার কী?

আমরা যে টাকা জমা রাখি, ধরি, ইসলামী ব্যাংকেই—সেটা ইসলামী ব্যাংক জমা রাখে বাংলাদেশ ব্যাংকে। আমাদের টাকার নোটে যে লেখা থাকে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক চাহিবামাত্র ইহার বাহককে ৫০০ টাকা দিতে বাধ্য থাকিবে’ সেটার অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকে এই বিপরীতে সোনা থাকার কথা ছিল। ফ্র্যাকশনাল রিজার্ভ ব্যাংকিং এর জুয়াচুরির বদৌলতে স্থির হয়, সোনা না, অ্যামেরিকান ডলার আর বন্ড কিনে রাখা হবে রিজার্ভ অর্থ দিয়ে।

সেই অ্যামেরিকান ডলার-ই হাওয়া হয়েছে। আপনার কিচ্ছু না। সোনালী ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক এগুলো নিয়েও চিন্তার কোনো দরকার নেই আপনার। আপনি টি-২০ ওয়ার্ল্ড কাপ দেখতে থাকুন।

– শরীফ আবু হায়াত অপু

—————————————
[i] ১৪ মার্চ ও ১৭ ই মার্চ বাংলা ট্রিবিউন
[ii] দৈনিক যুগান্তর, ২২ অগাস্ট ২০১৩
[iii] বণিকবার্তা , ১৪ই মার্চ ২০১৬
[iv] নিউ এইজ, ১৩ই মার্চ ২০১৬
[v] ১৫ই মার্চ RTNN
[vi] বিডিনিউস২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬
[vii] দৈনিক প্রথম আলো, ১৮ই মার্চ ২০১৬
[viii] বিডিনিউস২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬
[ix] দৈনিক প্রথম আলো, ১৮ই মার্চ ২০১৬
[x] দৈনিক প্রথম আলো, ১৮ই মার্চ ২০১৬
[xi] বিডিনিউস২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬
[xii] ইনকোয়ারার, ১৭ই মার্চ
[xiii] বিডিনিউস২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬
[xiv] বাংলা ট্রিবিউন, ১৭ই মার্চ ২০১৬
[xv] বিডিনিউস ২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬
[xvi] দৈনিক প্রথম আলো, ১৮ই মার্চ ২০১৬
[xvii] সহীহ মুসলিম ০৮
[xviii] দৈনিক প্রথম আলো, ১৬ই মার্চ ২০১৬
[xix] বিডিনিউস২৪, ১৫ই মার্চ ২০১৬

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button