বিবিধ প্রশ্নোত্তর/ফাতাওয়া

ইন্টারনেটে বিভিন্ন মাধ্যমে আয় করা কি হালাল?

অনলাইনে অনেক ফ্রিল্যান্সিং কোম্পানি রয়েছে যেমন ওডেস্ক, এলান্স, ল্যান্সটেক, ফ্রিল্যান্সার ইত্যাদি। এসব কোম্পানিগুলোতে কোনোরুপ ফি ছাড়াই রেজিস্ট্রেশন করে স্বীয় যোগ্যতা অনুযায়ী ওয়েব ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ডাটাএন্ট্রি ইত্যাদি কাজ পাওয়ার জন্য আবেদন করতে হয়। বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে বিভিন্ন কোম্পানি পছন্দ অনুযায়ী অনলাইনে এসব কোম্পানীর মাধ্যমে কাজ দেয় এবং নির্ধারিত হারে পারিশ্রমিক প্রদান করে। এর মধ্যে কোন সূদী বা হারাম লেনদেনের প্রসঙ্গ নেই। বরং স্বীয় কর্মদক্ষতা এবং পরিশ্রমের বিনিময়ে এখানে উপার্জন করতে হয়। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই “হালাল কাজে সহযোগিতা এবং হারাম কাজে অসহযোগিতা” (মায়েদাহ ২) নীতি অনুসরণ করতে হবে। কোন এ্যালকোহল, সিনেমা বা সূদী প্রতিষ্ঠানের কাজে অংশ নেওয়া যাবে না।

অন্যদিকে “ডোলেন্সার” সদ্য গজিয়ে ওঠা একটি ফ্রিল্যান্সার প্রতিষ্ঠান, যাদের কার্যক্রম অন্যদের মত নয়। বরং ফ্রিল্যান্সিং এর সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে এরা মূলতঃ এমএলএম ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। নানা আকর্ষণীয় প্যাকেজ দেখিয়ে তারা সদস্য ভর্তি করে এবং প্রায় বিনা পরিশ্রমে মোটা অংকের লাভের প্রতিশ্রুতি দেয়। এরা অসাধু এমএলএম ব্যবসার সাথে জড়িত বলে এদের সাথে সংশ্লিষ্ট হওয়া মোটেই বৈধ হবে না।

উল্লেখ্য যে, ডেসটিনি, নিউওয়ে, যুবক, এ্যাপটেক, ইউনিপেটু ইত্যাদি প্রতারক কোম্পানী সমূহের মত ডোলেন্সারও দেশের বেকার তরুণদের কাজে লাগিয়ে মাউসের সামান্য ক্লিকে আকাশ-কুসুম লাভের স্বপ্ন দেখাচ্ছে। মূলতঃ তারা মানুষের সস্তা আবেগকে কাজে লাগিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার নতুন ফাঁদ পেতেছে। তাই এদের থেকে দূরে থাকা অবশ্যক।

আরও দেখুন:  ভাঙা আয়নায় মুখ দেখা কি উচিত?

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

২টি মন্তব্য

  1. কিন্তু ঐ সকল বেশীর ভাগ কোমপানিতো তাদের ব্যাবসা পরিচালনা করে সুদ ভিত্তিক লোনের উপর দয়া করে বলবেন কি আমি বুজবো কেমনে যে তারা হালাল ভাবে ব্যাবসা করছে \

মন্তব্য করুন

Back to top button