হারাম/হালাল

নামাজ পড়া ব্যক্তি যদি সুদ খায় তাদের নিয়ে ইসলাম কী বলে?

প্রশ্ন : নামাজ পড়া ব্যক্তি যদি সুদ খায় তাদের কী মুসলিম বলে? মনে করেন—নামাজ-রোজা সব করেও সুদ খাওয়া, মিথ্যা বলা, পরের হক নষ্ট করা মানুষকে নিয়ে ইসলাম কী বলে?

উত্তর : ধন্যবাদ আপনাকে। নামাজ-রোজা পড়েও সুদ-ঘুষ খান মানে পাপ কাজও করেন আবার মাঝে মাঝে আল্লাহকে খুশি রাখার চেষ্টা করেন। এরা হচ্ছে ওই ব্যক্তি যারা আল্লাহকেও খুশি করতে চায় আবার শয়তানকেও খুশি করেন। মানে দুজনকেই প্রভু মানেন। সুতরাং এই ব্যক্তি মুনাফিকের চেয়েও ভয়ংকর অপরাধী। কেউ সত্যিকার ঈমানদার হলে ঈমানের দাবি অনুযায়ীই চলবে। যদি তিনি ঈমানের দাবি পূরণ করতে না পারেন তাহলে নিশ্চিত তাঁর অন্তরে ঈমান নেই। মুখেই তিনি ঈমান রেখেছেন কিন্তু অন্তরে নেই। কোনো ব্যক্তি অনিচ্ছাকৃত করলে এক কথা। তখন তিনি তওবা করে নিতে পারেন। কিন্তু ইচ্ছাকৃত করলে তো আপনি ইসলামকে অবমাননা করলেন। এমন ব্যক্তিকে আল্লাহ ক্ষমা করবেন না। আখিরাতেও তাঁর কোনো কল্যান হবে না।

প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বিশিষ্ট আলেম ড. মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আরও দেখুন:  জমি বন্ধক নিয়ে ইসলামের হুকুম কী?

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button