নির্বাচিত ফেসবুক স্ট্যাটাস

মুসলিম জাতি কি শক্তিতে দুর্বল?

পৃথিবীতে মুসলমানের সংখ্যা প্রায় ২০০ কোটি এবং মুসলমান দেশের সংখ্যা ৬৫-এর কাছাকাছি।

পৃথিবীতে মোট তেল ও গ্যাসের ৮০ ভাগ, কয়লার ৬০ ভাগ, স্বর্ণের ৬৫ ভাগ, রাবার ও পাটের ৭৫ ভাগ এবং খেজুরের ১০০ ভাগই মুসলমান দেশের।

সমগ্র পৃথিবীর আবাদযোগ্য উর্বর জমির অধিকাংশ মুসলমানদের। আল্লাহ প্রদত্ত যত খনিজ সম্পদ আছে তার অধিকাংশের মালিক মুসলিম দেশসমূহ।

চীন-আমেরিকা রাত-দিন পরিশ্রম করে টাকা ইনকাম করে আর মহান আল্লাহ বিনা পরিশ্রমে অঢেল টাকা মুসলিমদের মাটির নীচে দিয়ে রেখেছেন।

শুধু তাই নয় যদি কোনদিন পুরো পৃথিবী তেল-গ্যাস নির্ভরতা থেকে বের হয়ে সৌরশক্তির উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ে তাহলে সূর্যের তাপ সম্বলিত গ্রীষ্ম ও মরুভূমি প্রধান অধিকাংশ দেশই মুসলিমদের।

পৃথিবীর মোট দেশের আয়তনের তিনভাগের একভাগ এখনো মুসলমানদের দেশসমূহ। সুয়েজ খালসহ কৌশলগত যত সমুদ্রপথ যেগুলোর উপর ভিত্তি করে সমগ্র পৃথিবীর ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালিত হয় তার অধিকাংশের দখল মুসলমানদের।

সার্বিক দৃষ্টিকোণ থেকে ভাবলে দেখা যায় মহান আল্লাহ আজও মুসলিমদের অশেষ ও অঢেল সম্পদ দিয়ে রেখেছেন। যদি তারা এগুলোর সঠিক ব্যবহার করতে পারত। উপযুক্ত ও কৌশলগত সিদ্ধান্ত নিতে পারত। আল্লাহ প্রদত্ত নিয়ামতকে কাজে লাগিয়ে পরনির্ভরশীলতা কমিয়ে আনতে পারত। শিক্ষা ও বিজ্ঞানে প্রচুর খরচ করে অস্ত্র ও বিজ্ঞানে স্বাবলম্বী হতে পারত। আজও সেই হারিয়ে আসা স্বর্ণযুগ ফিরে আসত।

ফ্রান্সের মত একটি দেশ রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় প্রকাশ্যে আমাদের প্রিয় রাসূলকে অপমান করতেছে এর চেয়ে বড় দুর্বলতা ও অপমান আমাদের জন্য আর কি হতে পারে!

আমাদের সরকার প্রধানেরা যখন নিজ নিজ স্বার্থের কারণে এই ধরণের ঘটনা বন্ধের যথাযথ পদক্ষেপ নিতে পারতেছেনা তখন মুমিন হিসেবে ফ্রান্সের যাবতীয় পণ্য বয়কট করা আমাদের সফলতা বা আঘাত নয় বরং আমাদের ঈমানের সর্বনিম্ন স্তরের বহি:প্রকাশ মাত্র। আমাদের এই সামান্য পদক্ষেপ ফ্রান্সকে হয়তো বিপদে ফেলতে পারবেনা কিন্তু ফ্রান্সের পণ্য ব্যবহার করে আমি নিজের বিবেকের কাছে অপরাধী থাকবনা।

পাশাপাশি থাকবে সবচেয়ে বড় অস্ত্র দুয়ার ব্যবহার। শুধু ফ্রান্সের উপর বদ দুয়া নয়। যে মুসলমানদের মহান আল্লাহ এত অঢেল নিয়ামত দিয়েছেন তাদের শাসকদের হিদায়াতের জন্য দুয়া। শাসকগণের সুপ্ত ঈমান জেগে উঠার দুয়া। আত্মমর্যাদা ও সাহসিকতা জেগে উঠার দুয়া। যোগ্য শাসক চাওয়ার দুয়া।

শুধু মৌখিক ভালবাসা নয় আরো থাকবে সুন্নাতী আমল ও তার প্রচার। ইসলাম ভেঙ্গে দিবে পৃথিবীর সকল প্রাচীর। জাতীয়তাবাদ, বর্ণবাদ, গোত্রবাদ, সমাজবাদ সকল মতবাদের প্রাচীর ইসলাম একাই ভাঙ্গবে। এই জোয়ার কেউ থামাতে পারবেনা। কিন্তু তার জন্য বাহ্যিকের চেয়ে অভ্যন্তরীণ আমলের বিপ্লব সবচেয়ে জরুরী।

– আব্দুল্লাহ বিন আব্দুর রাযযাক

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button