নির্বাচিত ফেসবুক স্ট্যাটাস

মেয়েরা হচ্ছে সমাজের অর্ধেক যারা সমাজের বাকী অর্ধেক জন্ম দেয়

To Desired Deals

ইমাম ইবনুল কায়্যিম বলেছিলেন, মেয়েরা হচ্ছে সমাজের অর্ধেক যারা সমাজের বাকী অর্ধেক জন্ম দেয়। সে হিসেবে পুরো সমাজটাই নারীদের – আল্লাহু আকবার – কী দামী কথা!

অথচ আমাদের কিছু ভাই মেয়েদের স্বামীদের দাসী-বান্দী লেভেলের বাইরে কিছু চিন্তা করতে পারেন না।

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নারীদের স্বামীদের আনুগত্য করলেই জান্নাত – এ কথা যেমন বলেছেন, শাসকদের আনুগত্যও করতে বলেছেন।

অনেক ভাইয়েরা স্বামীদের আনুগত্যের ব্যাপারটা খুব আক্ষরিকভাবে নেন আর শাসকদের ব্যাপারটা নিয়ে ট্রল করেন।

যদি ব্যাপারটা এমন হয়, এই শাসক তো আনুগত্যের যোগ্য না – তাই আমরা ট্রল করি – তাহলে প্রতিদিন স্ত্রীকে আঘাত করার হুমকি দেওয়া এই ভাইয়েরা কতটা আনুগত্যের যোগ্য সেটা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ তৈরি হতে পারে।

প্রতিটা প্রতিষ্ঠান টিকে থাকার জন্য একটা অরগানোগ্রাম লাগে, হায়ারারকি লাগে। বাবাকে, স্বামীকে পরিবারের প্রধান করা হয়েছে সেই কারণে। আবার স্ত্রীকে সন্তানদের ওপরে দায়িত্ববান করার কথাটাও একই হাদিসে এসেছে।

যারা মেয়েদের শিক্ষা, স্কিল নিয়ে ট্রল করেন তাদের জেনে রাখা উচিত রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মেয়েদের অনুরোধে একটি দিন তাদের দ্বীন শেখার জন্য বরাদ্দ করেছিলেন।

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিদায় হজ্বের দিন খুব জরুরি কয়েকটা কথাতে মেয়েদের অধিকারের ব্যাপারটা এনেছেন। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাথে তাঁর স্ত্রীদের মনোমালিন্য হয়েছে – কিন্তু তিনি কখনও তাদের তাচ্ছিল্য করে কথা বলেছেন – আমরা এমন প্রমাণ পাই না।

এই সমাজে নাস্তিক, ফেমিনিস্টরা যখন লিভ টুগেদার আর অবৈধ যৌনাচারের পক্ষে কথা বলছে, পরিবার নামের প্রতিষ্ঠানটার চৌদ্দ গুষ্ঠি উদ্ধার করছে তখন কিছু বোনেরা সামনে এগিয়ে এসেছেন এবং মোটামুটি পথহারা সেকুলার একটা প্রজন্মের বোনদের সামনে ইসলামের মেসেজটা পৌঁছে দিচ্ছেন।

আল্লাহ আযযা ওয়া জাল্লা এ বোনদের লেখনী কবুল করে নিন। এটা ঠিক একেবারে সেকুলার পরিবেশে বড় হওয়ার কারণে কারো লেখার মধ্যে এমন কিছু বিষয় দেখা যায় যেটা ইসলামের মূল ভাবের সাথে যায় না। সেই ক্ষেত্রে আমরা এই বোনটাকে তার ভুলটা ব্যক্তিগতভাবে জানিয়ে দেওয়াই মঙ্গলজনক মনে করি। যারা ক্যারিয়ার বিসর্জন দিয়েছেন, অনেক ক্ষেত্রে পরিবারের বিরুদ্ধে গিয়ে অনেক লাঞ্চনা-অপমান সহ্য করে ইসলাম মানার চেষ্টা করছেন – তারা ‘বিদ্রোহী নারীবাদী’ – ইসলাম ধ্বংসের মিশনে নেমেছেন – এটা মিথ্যা কথা।

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, নারীরা পাজরের বাঁকা হাড় দিয়ে তৈরি – তাদের সাথে জোর জবরদস্তি করে গেলে হাড়টা ভেঙে যাবে। সংসার ভেঙে যাচ্ছে কারণ স্ত্রীকে সম্মান দেখানো হচ্ছে না – জুতোর তলা দেখানো হচ্ছে গায়ের জোরে – এবং তা জায়েজ করা হচ্ছে বেছে বেছে নেওয়া হাদীসের জোরে।

লিডার দুই রকমের হয় – একজনকে তার অনুসারীরা ভালোবাসে কারণ তিনি ভালোবাসার মতো কাজ করেন। অন্য ধরণের লিডাররা প্রতিনিয়ত অনুসারীদের মনে করিয়ে দেন তিনি নেতা এবং তাকে মানতে সবাই বাধ্য।

আপনার পরিবারের জন্য আপনার লিডারশিপ কেমন হবে – আপনি ঠিক করে নেবেন দয়া করে।

– Sharif Abu Hayat Opu

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button