নির্বাচিত ফেসবুক স্ট্যাটাস

মানুষের অভাব-দুঃখ কষ্ট দূর হয় না তার একটা বড় কারণ – এই দেশের প্রচুর মানুষের আয় হারাম

সফট স্কিলের ওপরে একটা পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা করছি। সেখানে ক্লাস নিলেন যিশু তরফদার স্যার, বাংলাদেশের করপোরেট জগতের অনেকেই উনাকে এক নামে চেনেন। উনার বৈশিষ্ট্য উনি কমপিটেনসি বেসড ট্রেইনিং করান।
তো প্রফেশনালিজম এর ক্লাসে উনার একটা পয়েন্ট ছিল “I have full faith in the nobility of my work”

উনাকে জিজ্ঞেস করলাম, স্যার আচ্ছা BAT ব্রিটিশ অ্যামেরিকান টোবাকোতে যদি কেউ ট্রেনিং দেয় – তখনও কী সে নোবল কাজ করছে?
উনি বললেন, নাহ।
একটা সিগারেট কোম্পানি কী করে?
মাদক বিক্রি করে। এরা ড্রাগডিলার। আমি কখনও ব্যাটে ট্রেইনিং করাই না।

উনি অমুসলিম হয়েও যে আদর্শ ধারণ করে বহু মুসলিম সেটা করে না। হাল জমানার বহু তরুণ-তরুণীর কাছে ব্যাটে চাকরি চরম আরাধ্য একটা ব্যাপার।

যারা সিগারেট বিক্রি করছেন তারা মানুষ মারছেন। ধীরে। উইপন অফ ম্যাস ডেসট্রাকশনের মতো। বিষ খেলে মরে একজন, সিগারেট খেলে মরে অনেকে।
স্লো পেইনফুল ডেথ।

সরকারের আইন শৃংখলা বাহিনীর লোকেরা বলে,
“চলো যাই যুদ্ধে, মাদকের বিরুদ্ধে।”
সরকারের মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বলে, “সিগারেট সব মাদকের প্রবেশদ্বার।”
সরকারের শুল্ক ও কর বিভাগ তামাকজাত পণ্যের শুল্কের জন্য হাঁ হয়ে বসে থাকে।

আর ব্যাট, আকিজ, ঢাকা টোব্যাকো ইনডাসট্রিজে কাজ করা মেধাবি মানুষগুলো প্ল্যান করে – কীভাবে সেলস বাড়ানো যায়, মার্কেট শেয়ার নেওয়া যায়। আরো বেশি মানুষকে হারাম খাওয়ানো যায়।

এ কাজে তারা সফলও। সিগারেট থেকে প্রতি বছর সরকারের আয় বেড়েছে। সিগারেটের বিক্রিও বেড়েছে। ধূমপায়ী বেড়েছে। WHO এর একটা রিপোর্ট তাই বলছে।

আচ্ছা, যারা সিগারেট কোম্পানিতে চাকরি করে ঘরে এসে সেই বেতন দিয়ে বউ-বাচ্চাকে খাওয়ায় তাদের কাছে খারাপ লাগে না?
নিজের সুখের জন্য অন্য মানুষকে মারা, স্ত্রীদের বিধবা করা, সন্তানদের এতিম করা – এটাতে কী মানুষের বিবেকে দংশন হয় না?

আরও দেখুন:  যিনার লাইসেন্স !!

মানুষকে অন্যায়ভাবে মেরে যে রিযক আসে সেটা হারাম। নিকৃষ্ট ধরণের হারাম। সিগারেট-তামাক-জর্দা-ইয়াবা – যত মাদক আছে – প্রত্যেকটার প্রডাকশন-মার্কেটিং-সেলসে যারা কাজ করছেন তারা সবাই পরোক্ষ খুনী। সেটা একেবারে বোর্ড অফ ডিরেকটরস থেকে শুরু করে পাড়ার মোড়ের বিড়ি-সিগারেটের দোকানী পর্যন্ত।
ইয়াবা-ফেনসিডিল, হিরোইন, মদ – যারা আমদানী করে, যারা বিক্রি করে – সবাই। যারা সেই বিক্রিতে সাহায্য করছে, যারা ঘুষ খেয়ে নিরাপত্তা দিচ্ছে – সবাই এই পাপে পাপী।

এই দেশে যে মানুষের অভাব-দুঃখ কষ্ট দূর হয় না তার একটা বড় কারণ – এই দেশের প্রচুর মানুষের আয় হারাম।

আল্লাহ আমাদের এই হারাম আয় থেকে বের হয়ে আসার তাওফিক দিন।

– শরীফ আবু হায়াত অপু

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button