আরো দেখুন...

২ Comments

  1. 2

    Seikh Lazim

    যুবক এসে বলল, আমাকে যিনার অনুমতি দিন। অন্যরা ধমকাতে লাগল- এই তুমি কার সামনে কী বলছ? চুপ কর!

    নবীজী ধমক দিলেন না। কাছে ডেকে নিলেন। বললেন-

    -তোমার মায়ের সাথে কারো ব্যভিচার করা কি তুমি পছন্দ কর?

    -আল্লাহ্র কসম, আপনার উপর আমার জান কোরবান হোক! কক্ষনো আমি এটা পছন্দ করব না, এটা হতে দিব না।

    -কোনো মানুষই তার মায়ের সাথে কারো ব্যভিচার করাকে পছন্দ করবে না।

    তোমার মেয়ের সাথে কারো ব্যভিচার করা কি তুমি পছন্দ কর?

    -আল্লাহ্র কসম, আপনার উপর আমার জান কোরবান হোক! কক্ষনো আমি এটা পছন্দ করব না, এটা হতে দিব না।

    -কোনো মানুষই তার মেয়ের সাথে কারো ব্যভিচার করাকে পছন্দ করবে না।

    তোমার বোনের সাথে কারো ব্যভিচার করা কি তুমি পছন্দ কর?

    -আল্লাহ্র কসম, আপনার উপর আমার জান কোরবান হোক! কক্ষনো আমি এটা পছন্দ করব না, এটা হতে দিব না।

    -কোনো মানুষই তার বোনের সাথে কারো ব্যভিচার করাকে পছন্দ করবে না।

    -তোমার ফুফুর সাথে কারো ব্যভিচার করা কি তুমি পছন্দ কর?

    -আল্লাহর কসম, আপনার উপর আমার জান কোরবান হোক! কক্ষনো আমি এটা পছন্দ করব না, এটা হতে দিব না।

    -কোনো মানুষই তার ফুফুর সাথে কারো ব্যভিচার করাকে পছন্দ করবে না।

    তোমার খালার সাথে কারো ব্যভিচার করা কি তুমি পছন্দ কর?

    -আল্লাহ্র কসম, আপনার উপর জান কোরবান হোক! কক্ষনো আমি এটা পছন্দ করব না, এটা হতে দিব না।

    -কোনো মানুষই তার খালার সাথে কারো ব্যভিচার করাকে পছন্দ করবে না।

    নবীজী তাকে আরো কাছে টানলেন। তার গায়ে হাত রেখে দুআ করে দিলেন-

    اللهُمّ اغْفِرْ ذَنْبَهُ وَطَهِّرْ قَلْبَهُ، وَحَصِّنْ فَرْجَهُ.

    আল্লাহ! আপনি তার গুনাহ ক্ষমা করে দিন। হৃদয়টা পবিত্র করে দিন। লজ্জাস্থানকে (অন্যায় কাজ থেকে) হেফাজতে রাখুন।

    বর্ণনাকারী আবু উমামা রা. বলেন, এরপর সে আর কোনোদিন ব্যভিচারের দিকে ফিরেও তাকায়নি। -মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ২২২১১

    উপরোক্ত হাদিসটির অথেন্টিক সোর্স বা লিংক প্রয়োজন একটু খুজে দিলে উপকৃত হবো

    Reply
  2. 1

    বিল্লাল

    মন্তব্য…মুসনাদে আহাম্মক আরও খন্ডন দরকার 3 4

    Reply

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহপূর্বক ইসলামিক অনলাইন মিডিয়া‘র মন্তব্যের নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন। আপনার ই-মেইল ঠিকানা গোপন থাকবে। নামই-মেইল আবশ্যক।

© ২০১১-১৮ ইসলামিক অনলাইন মিডিয়া