সংবাদ

ভারতের রাস্তায় আর মাঠে-ঘাটে প্রচুর অভুক্ত জীর্ণ-শীর্ণ গরু

ভারতের রাস্তায় আর মাঠে-ঘাটে প্রচুর অভুক্ত জীর্ণ-শীর্ণ গরু দেখা যায় এখন।

এই গরুগুলো কোথা থেকে এল?

ভারতে বিজেপি সরকার আসার পরে মুসলিমদের ওপর গরু জবাই এবং বিক্রি নিয়ে নানারকম নিষেধাজ্ঞা আসতে থাকে।

২০১৭ সালে রাষ্ট্রীয়ভাবে গরু জবাই নিষিদ্ধ করার উদ্যোগ সুপ্রীম কোর্ট খারিজ করে দিলেও উগ্রপন্থী হিন্দুরা থেমে থাকেনি।

২০১৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১১৯ টি খুন-পিটিয়ে হত্যার অপরাধ ঘটেছে শুধু ‘গরু খাওয়া’ এবং ‘গরু পাচার’ এর অপবাদ দিয়ে।

ফলে যে দরিদ্র কৃষকেরা ষাড় এবং বয়ষ্ক গরু বিক্রি করে দিত তারা এখন সে গরুগুলোকে ছেড়ে দিচ্ছে।

এই গরু পূজার পরিণতি কী?

১। ফসলহানি – মালিকহীন গরুগুলো গ্রামে গ্রামে ফসলের ক্ষেতে হানা দিচ্ছে – ফসল নষ্ট করছে।

২। জীবননাশ – শুধু ২০১৫ সালেই ৫৫০ জন মানুষ গরু-জনিত অ্যাক্সিডেন্টে মারা গেছে।

৩। বিজেপি গরু বিক্রি বন্ধ করলেও গরুর থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করেনি। সারা দেশে গরু আশ্রমের সংখ্যা ২০০০ এরও কম। গরুপূজার ফলে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছে গরুরা। খাবার না পেয়ে ধুঁকে ধুঁকে মারা যাচ্ছে অবোলা প্রাণীগুলো।

যারা নিজেরাই গরুকে মা হিসেবে ঠিক করে নিয়েছে, গরুর প্রতি তাদের এমন অন্যায় আচরণ দেখে ভারতের পশুপ্রেমীরাই প্রশ্ন তুলছেন – এ কেমন দেবাচার?

আরও দেখুন:  শূকরের মাংস গরুর মাংস বানিয়ে বিক্রি

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button