সংবাদ

ডা. যাকির নায়েকের সম্পত্তি বাযেয়াফত করা যাবে না, জানিয়ে দিলেন বিচারপতি

ভারতের বিশ্বখ্যাত দাঈ ও পীস টিভির কর্ণধার ডাঃ যাকির নায়েকের (৫২) বিরুদ্ধে দেশটির দুর্নীতি বিরোধী সংস্থা ‘এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট’ (ইডি) কর্তৃক সম্পদ বাযেয়াফত করার সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন ‘প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্টে’র অ্যাপিলেট ট্রাইব্যুনালের প্রধান বিচারপতি মনমোহন সিং। একই সাথে তিনি তাঁর স্থাবর সম্পত্তি বাযেয়াফত করা যাবে না বলে জানিয়ে দেন। বিচারপতি মনমোহন সিং প্রশ্ন তোলেন, ইডি কি যাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার বিরুদ্ধে পক্ষপাতমূলক আচরণ করছে না? সরাসরি তিনি ইডির আইনজীবীকে প্রশ্ন করেন, এই মামলায় এখনো পুরো চার্জশিটই দেওয়া হয়নি। তার আগেই আপনারা যাকির নায়েকের সম্পত্তি বাযেয়াফত করতে চাইছেন কেন? গত ১০ বছরে আপনারা আসারামের সম্পত্তি বাযেয়াফত করতে কিছুই করেননি, অথচ সেই আপনারাই দ্রুত ডাঃ যাকির নায়েকের সম্পত্তির দখল নিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন?

বিচারপতি বলেন, ডাঃ যাকির নায়েক তাঁর ভাষণে তরুণদের সন্ত্রাসবাদী কাজে উৎসাহ জুগিয়েছেন, এমন কোনো তথ্য-প্রমাণ ইডি পেশ করতে পারেনি। ইডি-র আইনজীবী যাকির নায়েকের ভাষণে বহু যুবক জঙ্গীবাদে জড়িয়েছে বলে বোঝানোর চেষ্টা করলে বিচারপতি বিরক্তি প্রকাশ করে এই মন্তব্য করেন।

বিচারপতি ইডির আইনজীবীকে আরো জিজ্ঞেস করেন, ‘আপনারা এমন কারো মন্তব্য রেকর্ড করেছেন কি যে ডাঃ নায়েকের ভাষণ শুনে উত্তেজিত হয়েছে? ২০১৫ সালে ঢাকায় জঙ্গী হানার ক্ষেত্রে যাকির নায়েকের রেকর্ড করা ভাষণ কি ভূমিকা রেখেছে তারও কি কোনো বিশদ তথ্য পেশ করেছেন আপনারা? মনে হচ্ছে নিজেদের উদ্দেশ্য সিদ্ধির জন্য আপনারা তাঁর ৯৯ শতাংশ ভাষণকে বাদ দিয়ে ১ শতাংশ ভাষণের উপর নির্ভর করে রয়েছেন। আপনারা কি তাঁর ভাষণ শুনেছেন? আমি কিন্তু অনেক ভাষণ শুনেছি। আমি আপনাদের বলতে পারি, অদ্যাবধি আপত্তিকর কোনো কিছু সেখানে পাইনি। বিচারপতি পরিষ্কার জানিয়ে দেন, যাকির নায়েকের সম্পত্তি বাযেয়াফত করা যাবে না। স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে হবে।

আরও দেখুন:  কাশ্মীরে পালিত হলো কালো দিবস

এর ফলে যাকির নায়েকের মুম্বাইয়ের বাণিজ্যিক সম্পত্তি এবং চেন্নাইয়ের স্কুল দখল করতে পারবে না ইডি। তবে ইডি ইতিমধ্যেই তাঁর তিনটি সম্পত্তি বাযেয়াফত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তার মধ্যে এই দু’টি সম্পত্তিও রয়েছে। আপাতত ইডি ওই বাযেয়াফত কার্যকর করতে পারবে না। এদিন নায়েকের আইনজীবী ট্রাইব্যুনালে জানান, ডাঃ যাকির নায়েকের সম্পত্তি বাযেয়াফত করার আগে তাকে জানানো পর্যন্ত হয়নি।

[আল্লাহর অনুগ্রহ থাকলে বাতিলের মাধ্যমেই বাতিল পরাস্ত হবে। ডাঃ যাকির নায়েক আবারও স্বরূপে আবির্ভূত হবেন ইনশাআল্লাহ (স.স.)]

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

Back to top button