সফটওয়্যার ও টিপস

ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহার করুন

বর্তমানে আমরা কম্পিউটারে যেসব সফটওয়্যার ব্যবহার করি তার অধিকাংশই পাইরেটেড/অবৈধ। ইসলামের দৃষ্টিতে যা হারাম। সাধারণত ঐসব সফটওয়্যারের বৈধ কপি উচ্চ মূল্য দিয়ে ক্রয় করতে হয়। তাই অধিকাংশ লোকই পাইরেটেড/অবৈধ কপি ব্যবহার করে থাকেন।

কিন্তু আমাদের অধিকাংশেরই এ বিষয়ে যথাযথ ধারণা নেই যে, ঠিক একই ধরণের সুবিধা সম্পন্ন সফটওয়্যার আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বৈধভাবে পেতে পারেন। এগুলোকে সাধারণত ওপেন সোর্স সফটওয়্যার বলা হয়। যেমন: অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে আপনি মাইক্রোসফট উইন্ডোজ এর পরিবর্তে লিনাক্স ব্যবহার করতে পারেন, মাইক্রোসফট অফিস এর পরিবর্তে LibreOffice ব্যবহার করতে পারেন ইত্যাদি। এখানে আপনি সব সুবিধাই পাবেন, অনেক ক্ষেত্রে বেশিও পাবেন, অবশ্যই বিনামূল্যে!


এখানে আপনাদের জন্য কিছু ওপেন সোর্স সফটওয়্যার দেওয়া হল।

ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম:

Linux (LinuxMint, Ubuntu, Debain, Fedora etc.)
Android

ওপেন সোর্স অফিস সফটওয়্যার:
LibreOffice
OpenOffice
WPS Office

অন্যান্য সফটওয়্যার:
অভ্র কিবোর্ড

ওপেন সোর্স এবং ফ্রী সফটওয়্যার ডাউনলোড সাইটট:
www.opensourcesoftwaredirectory.com
www.linuxalt.com
www.osalt.com

নিজে ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহার করুন এবং অন্যকে উৎসাহিত করুন, হারাম থেকে বেঁচে থাকুন!



পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যাবহার সম্পর্কে ইসলামের বিধান কি ?

পাইরেটেড সফটওয়্যার মূলত কি, তা আগে বুঝতে হবে কারন আমরা অনেকেই এ ব্যাপারে জানি না।

পাইরেটেড সফটওয়্যার:
কেউ যদি কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যার তৈরি করে বাজারে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ছাড়ে এবং একজন ক্রেতা সেটি কিনে অবৈধ ভাবে তাতে পরিবর্তন করে বাজারে বিক্রয় করে তবে সেই সব সফটওয়্যার হচ্ছে পাইরেটেড সফটওয়্যার।

মূল সফটওয়্যার প্রস্তুতকারী তার পণ্যের জন্য কিছু নিয়মনীতি তৈরি করে দেয়, সেই নিয়মনীতি ভঙ্গ করে তার সফটওয়্যার বাজারে বিক্রয় বা বিতরন করা হলে তাকে পাইরেটেড সফটওয়্যার বলে।

উদাহরন সরূপ একটি Original Software, Silver Disc -এ বাজারে বিক্রয় হচ্ছে ৭০০০ টাকা মূল্যে, কিন্তু আপনি সেটি কিনছেন ৫০ টাকা মূল্যে। তাহলে আপনি একটি পাইরেটেড সফটওয়্যার কিনলেন।

আরও দেখুন:  অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ: আল-হাদিস (Al Hadith)

সকল প্রকার পাইরেটেড সফটওয়্যার বা পণ্য বিক্রয়, বিতরন বা ব্যাবহার ইসলামী শরীয়তে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ, ইসলামিক পরিভাষায় আমরা এটিকে বলে থাকি হারাম।

আব্দুল আজীজ ইবন বায (রহ:) -কে এরূপ প্রশ্ন করা হয়েছিল তিনি বলেছেন:

এটি একজনের জন্য বৈধ নয় যে, কপি অধিকার সংরক্ষিত (Copyright Protected or All Rights Reserved) সফটওয়্যার কপি করা ঐ প্রোগ্রামের মালিকের অনুমতি ব্যতীত। রাসূল (সা:) বলেছেন: “মুলসলিমরা তাদের চুক্তিতে আবদ্ধ” [তীরমিযি]

এবং

“অন্য মুসলিমের সম্পদ অবৈধ, যদি না সে ইচ্ছা করে দেয়” [মুসনাদে আহ্‌মদ]

এবং রাসূল (সা:) আরও বলেছেন:
“যদি কেউ কোন ভাল কাজ (বা পণ্য তৈরি) করে যা অন্য কেউ করেনি, তা তারই থাকবে” [বুখারী]

এটা তার জন্যই প্রযোজ্য হবে যে এই সফটওয়্যার প্রোগ্রামের মালিক, হোক সে মুসলিম অথবা যুদ্ধে লিপ্ত নয় অমুসলিম কারন যুদ্ধে লিপ্ত নয় অমুসলিমের অধিকার একই রূপে সম্মান দেওয়া হয়, একজন মুসলিমের মত।

আল্লাহ্‌ যেন আমাদের সফলতা দান করেন। সালাম এবং দুরুদ বর্ষিত হোক আমাদের নাবী মুহাম্মদ (সা:) এর উপর, তাঁর পরিবার এবং সাথীদের উপর।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

২টি মন্তব্য

  1. আসসালামুয়ালাইকুম,
    আমি একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। আমি একটি অফিসে আইটিতে জব করি। এখন আমার প্রস্ন হল আমি না হয় ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহার করলাম কিন্তু আমার অফিসে যারা আছেন তারা তো সিস্টেমের পরিবর্তন চান না । এমন কি তাদের সফটওয়ারে কোন সমস্যা হলে তা আমাকেই সমাধান করতে হয়।এখন আমার কি করনিয়?আমার চাকরি/সাপোর্ট কি বৈধ হবে?

Back to top button